একই সময়ে তিন নারীর সঙ্গে সম্পর্ক: একেই ভালবাসাই বলছেন মনোবিদরা

এই সময়ে নানা রকম ভালবাসার কাহিনি শোনা যায়। ভ্যালেন্টাইন্স সপ্তাহ বলে কথা। সবচেয়ে প্রিয় মানুষটিকে নিয়ে কত গল্পই না হয় এ সময়ে। কিন্তু সবচেয়ে প্রিয় যদি হয় ৩ জন? মানে একই সময়ে যদি প্রেম করেন ৩ জনের সঙ্গে? তবে কি তাকে ভালবাসা বলবেন না?

প্রেম দিবসে কী করছেন জানতে চাওয়া হলে এমনই প্রশ্ন পেয়েছে আমরা। ঢাকার ছেলে নিলয়। জানালেন, ৩ জন নারীর সঙ্গে আপাতত সম্পর্কে রয়েছে তার। ৩ জনকেই ভালবাসেন তিনি।

এক-এক জনের সঙ্গে এক-এক ধরনের বন্ধুত্ব। রয়েছে শারীরিক সম্পর্কও। এতে কোনও সমস্যা দেখেন না তিনি। নিজেকে অসৎ বলেও মনে হয় না তাঁর।

হঠাৎ অসততার প্রসঙ্গ কেনোতুললেন নিলয় ? কারণ, ওই তিন নারী সকলে একে-অপরকে চিনলেও, সবটা জানে না তারা। তবে না জানিয়ে এমন সম্পর্ক রাখলে তিনি অসৎ নন কী করে? কারণ, তাঁর ভালবাসায় কোনও কমতি নেই। ৩ জনকে ৩ ভাবে ভালবাসেন। কেউ কারও জায়গা নিতে পারবেন না। এমনই বক্তব্য নিলয়ের।

তবে তা বলেন না কেন তাঁদের? বলেছেন শুধু তাঁদের এক জনকে। যিনি সবটা বুঝতে পারবেন বলে মনে হয়েছে ওঁর। কলেজ শিক্ষিকা সেই বান্ধবী, কানিজ ফাতেমা, নিলয়ের বয়সি। এই সম্পর্কটা অনেক বেশি বন্ধুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন নিলয়। রাগ করেন না কখনও এমন প্রশ্নে নিলয় মুচকি হাসেন। তার পর বলেন, ‘‘ও তো আমার ৩ বান্ধবীর নাম দিয়েছে ‘বড় বউ’, ‘মেজ বউ’ আর ‘ছোট বউ’। ‘মেজ বউ’ তো ও নিজেই।’’

তবে ‘বড় বউ’ আর ‘ছোট বউ’ জানেন না কেন? কানিজ ফাতেমার সঙ্গে পরিচয় আছে ‘বড় বউ’-এর। তাঁরা বন্ধু। একে-অপরের সঙ্গে কাজও করেছেন। তবে ‘বড় বউ’ আগে থেকেই ছিলেন নিলয়ের জীবনে। পরে ঢুকেছেন। ফলে সে যে ভাবে পরিস্থিতিটা বুঝছেন, নিলয়ের আগের প্রেমিকার পক্ষে তা মেনে নেওয়া সম্ভব না-ও হতে পারে।

সেই ‘বড় বউ’-এর সম্পর্কে শোভন বলেন, ‘‘ও আমার চেয়ে বয়সে খানিক বড়। আমাকে খুবই দেখে, রাখে। কানিজের সঙ্গে সম্পর্কটা যে কিছুই বোঝে না, এমন নয়। তবে প্রশ্ন করে না।’’

আর ‘ছোট বউ’? সে সত্যিই ছোট, জানান নিলয়। সবে কলেজ পেরিয়েছে। তার বাকি সম্পর্ক নিয়ে অত ভাবনা নেই। তার প্রেমিকের কাছ থেকে অন্য ধরনের চাহিদা। তার বক্তব্য, ‘‘ওকে আমি ছাত্রীর মতো দেখি। যা আবদার করে পালন করি। এই বয়সে অনেক কিছু করা হত না ওর পাল্লায় না পড়লে।’’

সে জানেন, অনেকেই প্রশ্ন তুলতে পারেন তাঁর ভালবাসা নিয়ে। একসঙ্গে ৩ জনকে ভালবাসেন, বেশির ভাগ মানুষই হয়তো বিশ্বাস করতে পারবেন না। তবে একে ভালবাসা বলতে বাধছে না মনোবিদ অনুত্তমা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তিনি বলেন, ‘‘একে ভালবাসা না বলার কী কারণ? একাধিক সম্পর্ক আমাদের আশপাশে অনেকেরই হয়। যদি একই ভাবে বাবা এবং মাকে ভালবাসতে পারি। একাধিক ভাই-বোন থাকলে,

তাঁদের ভালবাসতি পারি। তবে প্রেমের সম্পর্কে এক জনের অধিক মানুষের সঙ্গে জড়ানো যাবে না কেন?’’ তাঁর বক্তব্য, প্রেমের সম্পর্ককে এক সময়ে একটায় বেঁধে রাখার চল হয়েছে জটিলতা এড়াতে চেয়ে। এর সঙ্গে বিবাহ নামক প্রতিষ্ঠানটি নানা ভাবে যুক্ত। আর বিয়ের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে অর্থনৈতিক এবং পারিবারিক নানা হিসেব-নিকেশ। ফলে এক সময়ে ১ জনের বেশি মানুষের প্রেমে পড়লে বোঝাপড়ায় সমস্যা হতে পারে বলে মনে করে এসেছে সমাজ। মনোবিদ অবশ্য বলেন, ‘‘বোঝাপড়াটা নিজের হাতে। নিজে যদি ৩ জনের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রাখতে পারেন, তাতে ক্ষতি কী?’’

নিজের আসল নাম প্রকাশেও আপত্তি নেই নিলয়ের। বান্ধবীদের নাম অবশ্যই বলতে চান না। কারণ নাম প্রকাশ করা তাঁদেরও ব্যক্তিগত পছন্দের ব্যাপার বলেই মনে করেন তিনি। শোভনের এই তিনটি সম্পর্কের কথা জানেন তাঁর অনেক বন্ধু। তবে আপাতত তিনি মেঘের আড়ালে থেকেই বুঝতে চান তাঁকে নিয়ে তৈরি হওয়া বিভিন্ন ধারণা। পড়তে চান এই তিনটি সম্পর্ক নিয়ে সমাজের মন্তব্য।

তথ্য সুত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *