ঘুমন্ত স্ত্রীর যৌনাঙ্গে স্টিলের ডিলডো ব্যবহার!

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজে’লার ভূবনঘরে যৌ’তুকের দা’বি মি’টাতে না পেরে স্বামীর হা’তে পা’শবিক অ’ত্যা চারের শি’কার হয়েছেন এক গৃহব’ধূ। ওই গৃহব’ধূর অ’ভিযোগ বাবার বাড়ি থেকে যৌ’তুকের টাকা এনে দিতে রা’জি না হওয়ায় এমনটি করেছেন।

ঘুমের ও;ষুধ খাইয়ে যৌ;ন পুরুষা;ঙ্গ আকৃতির লম্বা স্টিলের ডি’লডো যৌ;না;ঙ্গে ব্যবহার করে তাকে গু;রুতর আ’হত করা হয়। অ’ভিযুক্ত স্বামী শাকিব ভূবনঘর গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে।

এ ঘ’টনায় বুধবার রাতে স্ত্রীর অ’ভিযোগের ভিত্তিতে শাকিবকে আ’টক করে বৃহস্পতিবার আ’দালতের মাধ্যমে জে’লহা’জতে পাঠায় পু’লিশ।

অ’ভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত প্রায় আট বছর আগে ভূবনঘর গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে শাকিবের (২৭) সাথে পাশের দেবিদ্বার উপজে’লার পূর্ব ন’বীপুর গ্রামের শাহ আলমের মেয়ে নিপা আক্তরের (২৪) বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকেই যৌ’তুকের দা’বিতে নিপা আক্তারের ওপর চলত অ’ত্যা চার। এ অবস্থায় নিপার বাবার কাছ থেকে কয়েক দফায় প্রায় পাঁচ লাখ দশ হাজার টাকা এনে দেওয়া হয়।

কিন্তু কিছু দিন যেতে না যেতেই ফের যৌ’তুকের দা’বিতে চলে অ’ত্যা চার। গত দেড় মাস আগে জমি কেনার কথা বলে আরো দুই লাখ টাকা যৌ’তুক দা’বি করে শাকিব।

গত মঙ্গলবার ৯ ফেব্রুয়ারি নিপা জানিয়ে দেন তাঁর বাবার পক্ষে আর টাকা দেওয়া সম্ভব না। এ কথা শুনে শাকিব তার স্ত্রী নিপাকে মা;রধ’র করে। পরে ওই দিন রাতেই শাকিব তার স্ত্রী নিপাকে এলার্জির ও;ষুধের কথা বলে ঘুমের ও;ষুধ খা’ইয়ে দেয়।

একপর্যায়ে স্ত্রী ঘুমিয়ে গেলে শাকিব লম্বা স্টিলের একটি যন্ত্র (ডি’লডো) তার স্ত্রীর যৌ;না;ঙ্গে ব্যবহার করে তাকে আ’হত করে। এসময় নিপার চিৎ’কারে আশপাশের মানুষ ছু’;টে এলে শাকিব ঘ’টনাস্থল থেকে পা’লিয়ে যায়।

পরে নিপা তার বাবার বাড়ির লোকজনকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ঘ’টনাটি জানান। খবর পেয়ে নিপার মা হালিমা বেগম এসে দ্রু’ত তাকে উ’দ্ধার করে দেবিদ্বার উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎ’সা শে’ষে ওই দিন রাতেই উন্নত চিকিৎ’সার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপালে ভর্তি করান।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থা’নার অফিসার ইনচার্জ মো. সাদেকুর রহমান বলেন, অ’ত্যা চারের শি’কার ওই গৃহবধূ’র অ’ভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার রাতে অ’ভিযুক্ত শাকিবকে গ্রে’ফতার করে আ’দালতের মাধ্যমে জে’ল হা’জতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *