প্রথমবার আকাশে দেখা মিলল সেই পবিত্র ‘আইবিস’ পাখি

বিশ্বজুড়ে চলছে করোনা আবহ। অদৃশ্য ব্যাধির দাপটে কার্যত বেসামাল অবস্থা ভারতবাসী। করোনার সংক্রমণ রোধে চলছে দফায় দফায় লকডাউন।

তবুও লাগাম টানা যাচ্ছে না মৃত্যু মিছিলের। প্রায় পাঁচ মাস হতে চলল গৃহবন্দি সাধারণ মানুষ।

ফের এই লকডাউনের সময় অভিনব এক দৃশ্যের সাক্ষী হয়ে রইলেন প্রকৃতি প্রেমী মানুষজন। এবার ভাদোদরার আকাশে দেখা মিলল সুদূর আফ্রিকার ‘আফ্রিকান আইবিস পাখির।’

যা আফ্রিকানদের কাছে পবিত্র পাখি হিসেবে খ্যাত। আর ঘরে বসে এমন অবাক করা দৃশ্যের সাক্ষী থাকতে পেরে আপ্লুত হয়ে পড়েছেন আট থেকে আশি বছরের সকলেই।

সম্প্রতি এই আফ্রিকান আইবিস পাখির ছবিটি নিজের ইন্সটাগ্রামে পোস্ট করেছেন সোরং দালভি। পেশায় ইঞ্জিনিয়ার ওই ব্যক্তির বাড়ি ভাদোদরার সানফার্মা রোডে। গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সোরং জানিয়েছেন,

পেশায় ইঞ্জিনিয়ার হলেও পশুপাখির প্রতি তার প্রেম অনেকদিনের। নতুন নতুন পশু-পাখির সঙ্গে পরিচিত হওয়া তার একটা নেশাও বটে।

আর এই নেশার টানেই কাজের ফাঁকে সময় পেলেই তিনি বেরিয়ে পড়েন নতুন কিছু আবিষ্কারের সন্ধানে। আর এভাবেই প্রতিদিন সকালে দুই ঘণ্টা সময় নিজেকে উজাড় করে দেন প্রকৃতির সঙ্গে।

প্রকৃতির প্রতি এমন ভালোবাসায় তাকে সাক্ষাৎ করিয়ে দিয়েছে আফ্রিকান আইবিস পাখির সঙ্গে। সোরং আরও জানিয়েছেন, গত এপ্রিল মাসের ২০ তারিখ ভাদোদরার একটি জঙ্গল থেকে তিনি পরিযায়ী ওই পাখির ছবিটি তোলেন। প্রথমে তিনি পাখিটি চিনতে না পারলেও ওই ছবিটি নিয়ে গিয়ে দেখান তারই এক বন্ধুকে।

এরপর ওই ছবিটি পাঠানো হয় এমএস প্রাণীবিদ্যা বিশ্ববিদ্যালয়ে। সেখান থেকেই নিশ্চিতভাবে জানানো হয় যে, সোরং-এর তোলা পরিযায়ী পাখিটি হল আফ্রিকান আইবিস পাখি।

যা আগে কখনও ভারতে দেখা যায়নি। শুধু তাই নয়, এই পাখিদের বিচরণ ক্ষেত্র একমাত্র দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে মধ্য আফ্রিকার মধ্যে। তবে মাঝেমধ্যে এর দেখা মেলে কাজাকিস্তান, তুর্কি, ইরাক এবং রাশিয়ায়।

ফলে বলাবাহুল্য, করোনাভাইরাস ঠেকাতে বিশ্বজুড়ে জারি লকডাউন। আকাশপথে বিমান চলাচলও থমকে যাওয়ায় একপ্রকার নিশ্চিন্তে উড়ে বেড়াচ্ছে পরিযায়ী পাখির দল। কারণ, পাখিদের যে সীমানায় বেঁধে রাখা যায় না। কলকাতা২৪

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *