যে আসনে দলীয় প্রার্থী দেবে না বিএনপি

দলটির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, যেহেতু নির্বাচন কমিশন সব প্রকার নির্বাচন পরিচালনায় অযোগ্যতার পরিচয় দিয়েছে এবং সরকার নির্লজ্জভাবে সব নির্বাচনগুলোতে বেআইনি হস্তক্ষেপ করছে

সেহেতু বিএনপি আপাতত এসব নির্বাচনে অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গত ১৩ মার্চ বিকেলে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির ভার্চ্যুয়াল সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়।

লক্ষ্মীপুর-২ আসনে জাতীয় সংসদের উপ-নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী না দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে বিএনপি। রোববার (১৪ মার্চ) সন্ধ্যায় দলের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

সভায় জিয়াউর রহমান এবং ৭১ এর ২৫ ও ২৬ মার্চের ঘটনা প্রবাহ সম্পর্কে সরকার প্রধানের বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। আওয়ামী লীগ পরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বিকৃত করে পরবর্তী প্রজন্মকে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলে দাবি করা হয়।

সম্প্রতি প্রধান বিচারপতি বাংলাদেশের ইমেজ ক্ষুণ্নের বিষয়ে যে মতামত দিয়েছেন সে বিষয়ে সভায় বলা হয়, বাংলাদেশের বর্তমান ভোটাধিকার লুণ্ঠন, মানবাধিকার হরণ ও অগণতান্ত্রিক পরিবেশের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশের ইমেজ সম্পর্কে প্রধান বিচারপতির বক্তব্যের বিষয়ে আরও বিস্তারিত আলোচনার জন্যে আইনজীবী ফোরামের নেতাদের প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভা মনে করে সংবিধানের ব্যাখ্যা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের নৈতিক দায়িত্ব এ বিষয়ে সঠিক অবস্থান গ্রহণ করা।

সভায় সম্প্রতি দুদকের একজন অভিযুক্তকে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা সত্যেও বিদেশে পলায়ন করতে সহযোগিতা করায় হাইকোর্টের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া এবং দুদকের বিতর্কিত ভূমিকা নিয়ে আলোচনা হয়। সভা মনে করে দুদক নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন না করে দলীয় দৃষ্টিকোন থেকে কাজ করার সুযোগ তৈরি করছে, যা দুর্নীতি দমনের ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করছে না।

জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ সিঙ্গাপুরে অত্যন্ত সংকটাপন্ন অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সভায় তার আশু রোগ মুক্তি কামনা করা হয়। জাতীয় স্থায়ী কমিটির আরেকজন সদস্য সেলিমা রহমান করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তার রোগ মুক্তি কামনা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *