স্বামী নয়, আমার সন্তানের বাবা আমার ১৫ বছর ব’য়সী এক ছাত্র : শিক্ষিকা

নিজের ছাত্রের প্রতি আকৃ’ষ্ট হয়ে বি’ব’স্ত্র ছবি পাঠানোর অ’ভিযো’গ রয়েছে একজন নারী শিক্ষিকার বি’রু’দ্ধে। এছাড়া ক্লাসরুমে ছাত্রের স’ঙ্গে বি’শেষ মু’হূর্তে জ’ড়াতে চে’য়েছেন ওই ‘না’রী।

মোবাইলে এক বার্তায় তিনি ছাত্রকে লিখেছেন, আমার স্বামীর বি’শে’ষা’ঙ্গের চেয়ে তোমার … বড়। ইংল্যান্ডের বাকিংহামশায়ারের একটি আ’দালতে এ ব্যাপারে শু’নানি হয়েছে।

শু’নানির সময় ওই ছাত্র জানায়, শি’ক্ষিকার এ ধ’রনের ছ’বি দেখে সে বি’ব্র’ত হয়েছে। আরেক ছা’ত্র বলেছে, সে মনে করেছে ভু’ল করে এ ধ’রনের ছ’বি চ’লে এসে’ছে।

কিন্তু পরে শি’ক্ষিকার চা’পে শারী’রিক স’ম্পর্ক স্থাপ’ন করতে বা’ধ্য হয়েছে। একপর্যায়ে ওই শি’ক্ষিকা জানান, তিনি গর্ভ’ব’তী। আর সেই সন্তা’নের বাবা ১৫ বছরের কিশোর।

এ ব্যাপারে ওই ছাত্র আ’দালতে জা’নিয়েছে, শা’রীরিক স’ম্প’র্কের সময় তিনি আমাকে বলেছেন, তার প্রে’মিকের স’ঙ্গে এ ধ’রনের সম্প’র্ক হয়। আর এজন্য তি’নি পি’ল খাচ্ছেন। সে কার’ণে জ’ন্ম নিয়’ন্ত্রণ পদ্ধ’তির দরকার নেই।

২০১৮ সালের অক্টোবরে প্রথম সাক্ষাতে তারা বিভিন্ন বিষয়ে আ’লাপ করেছেন। তবে দ্বি’তীয়বারের দে’খায় শা’রী’রিক সম্প’র্কে জড়া’ন তারা। কিশোরের সহপাঠী জানায়, প্রথমে আমি বিষয়টি বিশ্বাস করিনি।

কিন্তু পরে ম্যাসেজ ও ভি’ডিও দে’খে বি’শ্বাস করি। উনি আমার ব’ন্ধুকে বলেছেন, তিনি পি’ল খা’চ্ছেন। সে কারণে অন্য পদ্ধতির দর’কার নেই।সূত্র : মিরর প্রতিকী ছবি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *