খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানো নিয়ে এইমাত্র যা জানা গেলো

সরকারের নির্বাহী আদেশে মুক্ত থাকা বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেছে তার পরিবার।

মঙ্গলবার (২ মার্চ) খালেদা জিয়ার ভাই শামীম ইস্কান্দার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর এই আবেদন করেন।

পরিবার ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে খালেদা জিয়ার বোন সেলিমা ইসলাম বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমি কিছু জানি না। আবেদনের বিষয়ে আমাকে কেউ কিছু বলেননি।

পরিবারের একটি সূত্র জানান, মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে খালেদা জিয়ার ভাই শামীম ইস্কান্দার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন জমা দেন। একইসঙ্গে খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নিতে তার স্থায়ী জামিনের আবেদনও করা হয়। তবে, এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে খালেদা জিয়ার পরিবারকে কিছু জানানো হয়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির এক নেতা বলেন, খালেদা জিয়া মুক্তি পাওয়ার পর থেকে সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া সব শর্তই অক্ষরে-অক্ষরে পালন করে আসছেন। ফলে, দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে আশা করা যেতে পারে সরকার তাকে স্থায়ী জামিন দিবে।

প্রসঙ্গত. জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে ছিলেন খালেদা জিয়া। গত বছর ২৫ মার্চ ৭৬ বছর বয়সী খালেদা জিয়াকে ২৫ মাস কারাভোগের পর শর্তসাপেক্ষে ছয় মাসের জন্য দণ্ড স্থগিত করে মুক্তি দেয় সরকার। এরপর দ্বিতীয় দফায় ফের ছয় মাস সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানো হয়। সেই মেয়াদ আগামী ২৫ মার্চ শেষ হচ্ছে।

জানতে চাইলে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বাংলানিউজকে বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছু জানি না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *