বিয়ের ১২ দিনের মাথায় নববধূর মৃ’ত্যু নিয়ে রহস্য

গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জে আফরিন আক্তার মীম নামে স্কুল শিক্ষার্থীর বিয়ের ১২ দিনের মাথায় রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এর পর থেকে স্বামী কাতার প্রবাসী আল-আমিন পলাতক রয়েছেন। প্রেমের সম্পর্কের পর পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে হয়।

বৃহস্পতিবার রাতে কালীগঞ্জ পৌর এলাকার ৫নং ওয়ার্ড বালিগাঁও গ্রামের আনোয়ার হোসেনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নববধূ আফরিন আক্তার মীম (১৭) নরসিংদী জেলার পলাশ উপজেলার পলাশ বাজার এলাকার ড্রাম কাটার

মিস্ত্রী মাহফুজ মিয়ার মেয়ে। সে পলাশ পাইলট স্কুলের ১০ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। শুক্রবার বাদ মাগরিব নামাজের জানাজা শেষে নিহতের স্বামীর বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে লাশ দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

নিহতের স্বজনরা জানান, আফরিন আক্তার মীমের সঙ্গে কালীগঞ্জ পৌর এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে কাতার প্রবাসী আল-আমিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। উভয় পরিবারের সম্মতিতে ২১ ফেব্রুয়ারি পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের ১২ দিন অতিবাহিত হতে না হতেই মীমের জীবনে নেমে আসে বিষের ছায়া। এ ঘটনাকে নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

নিহতের বাবা মাহফুজ মিয়া বলেন, আমার মেয়ের কি হলো জানি না। কেনই বা এ ঘটনাটি ঘটলো। কি দোষ ছিল তার? বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মেয়ের শ্বশুরবাড়ির লোকজন আমাকে ফোনে জানায় সে অসুস্থ। তাকে উত্তরায় হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে।

তার স্বামীর সঙ্গে বার বার কথা হয় আমার। মেয়ের কী হয়েছে বললে সে কথা এড়িয়ে যায়। পরে তার দীর্ঘক্ষণ পরে অন্য লোক জানায় মেয়ে মারা গেছে। খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে মেয়ের স্বামী বাড়িতে এসে লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেই।

এ বিষয়ে থানার এসআই সুকান্ত বিশ্বাস জানান, ঘটনাস্থল থেকে নিহত ওই নববধূর লাশ উদ্ধার করে শুক্রবার দুপুরে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্টে লাশর দেহে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *