প্রধানমন্ত্রীর কাছে যা চাইলেন মেয়র আইভী

নারায়ণগঞ্জে ত্বকী হত্যা ও বিচারহীনতার ৮ বছর উপলক্ষে আলোর ভাসান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চাইলেন মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী। সোমবার রাতে নারায়ণগঞ্জ শহরের ৫ নম্বর ঘাট এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে (যেখান থেকে ত্বকীর লাশ উদ্ধার করা হয়) এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভবানী শংকর রায়ের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন নিহত ত্বকীর বাবা সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বি, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক জামসেদ আনোয়ার, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি জাহিদুল হক।

অনুষ্ঠানে মেয়র আইভী বলেন, ওসমান পরিবার নারায়ণগঞ্জকে ভিতুর শহরে পরিণত করতে চায়, জুজুর ভয় দেখাতে চায়। প্রশাসনের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘ওসমানরা খুন, লুটপাট, সন্ত্রাসের অভিভাবক। আপনারা খুনিদের পৃষ্ঠপোষকতা করা বন্ধ করুন, নারায়ণগঞ্জের সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ান।’

রফিউর রাব্বি বলেন, ‘৮ বছরেও ত্বকী হত্যার বিচার হয়নি। ত্বকী হত্যাকাণ্ডের অনেক কিছু মুছে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। আজমেরী ওসমানের টচার্র সেলে শুধু ত্বকী নয়, অসংখ্য শিশুকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে। রাজন-রাকীব হত্যাকাণ্ডের ৬ মাসের মধ্যে বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। কিন্তু ত্বকী হত্যায় ওসমান পরিবার জড়িত বলে এর বিচার হচ্ছে না।’

আলোর ভাসান অনুষ্ঠান শুরুর আগে নাটক, আবৃত্তি, সংগীত পরিবেশন করা হয়। পরে নদীর তীরে মেয়র আইভীসহ উপস্থিত সবাই মোমশিখা প্রজ্বালন করেন। উপস্থিত ছিলেন সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহবুবুর রহমান,

সদস্যসচিব হালিম আজাদ, খেলাঘর আসর কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম, ন্যাপ জেলার সম্পাদক আওলাদ হোসেন, সমমনা সভাপতি দুলাল সাহা, ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সভাপতি হাফিজুর রহমান, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি জিয়াউল ইসলামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা।

২০১৩ সালের ৬ মার্চ নগরীর শায়েস্তা খান রোডের বাসা থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ হন ত্বকী। ৮ মার্চ শীতলক্ষ্যা নদীর কুমুদিনী শাখা খাল থেকে ত্বকীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় সুলতান শওকত ভ্রমর আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে জানান, আজমেরী ওসমানের নেতৃত্বে ত্বকীকে অপহরণের পর হত্যা করা হয়। এর পর থেকে ধারাবাহিকভাবে ত্বকী হত্যায় দ্রুত অভিযোগপত্র প্রদান ও বিচারের দাবিতে প্রতি মাসের ৮ তারিখ মোমশিখা প্রজ্বালন কর্মসূচি পালন করছে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোট। সূত্র : প্রথম আলো

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *